সামনে লেখা দুর্নীতি মুক্ত অফিস, ভেতরে চলে ঘুষের কারবার

৫:২০ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০ পটুয়াখালী, বরিশাল বিভাগ, শিরোনাম

ডেস্ক রিপোর্ট ::

অফিসের সামনে সুন্দর করে লেখা ‘আমি এবং আমার অফিস দুর্নীতি মুক্ত’। কিন্তু ভেতরে চলছে ঘুষের কারবার। খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর চাল ডেলিভারী অর্ডার তৈরির ক্ষেত্রে বাউফল উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে উৎকোচ নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রত্যেক ডিলারের কাছ থেকে ১০০০ টাকা হারে উৎকোচ নেয়ার পরই ডেলিভারী অর্ডার দেয়া হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর চাল বিক্রির জন্য বাউফল উপজেলায় মোট ৪০ জন ডিলার রয়েছেন। আর এই কর্মসূচীর সুবিধাভোগীর সংখ্যা ১৯২৩২ জন। প্রত্যেক ডিলার ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে চালের মূল্য পরিশোধের পর উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তার কাছ থেকে ডেলিভারী অর্ডার নিয়ে থাকেন। ওই ডেলিভারী অর্ডার নেয়ার ক্ষেত্রেই প্রত্যেক ডিলারকে ১০০০ টাকা হারে উৎকোচ দিতে হচ্ছে।

ধুলিয়া ইউনিয়নের আলমাস হাওলাদার, মদনপুরা ইউনিয়নের নিজাম উদ্দিন ও নাজিরপুরের সিরাজ মেম্বার সহ একাধিক ডিলার বলেন, উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তার নামে অফিস সহকারিরা ১০০০ টাকা হারে উৎকোচ আদায় করছেন।

এছাড়া খাদ্য গুদাম থেকে চাল ডেলিভারী নেয়ার ক্ষেত্রেও নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা দিতে হয়। অবশ্য উৎকোচ নেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমার নামে অফিসের কেউ টাকা নিলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকির হোসেন বলেন, আমার কাছে ডিলাররা কোন ধরনের অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।