• বরিশাল |১৫ই আগস্ট, ২০২০ ইং

রাঙ্গাবালীতে নাজমুন্নাহারকে মারধর হাসপাতালে কাতরাচ্ছে

গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীতে নাজমুন্নাহার (৩৫) কে মারধর হাসপাতালে কাতরাচ্ছে। নাজমুন্নাহার হচ্ছেন উপজেলার চরমোন্তাজ ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের চর লক্ষ্মী গ্রামের জলিল মেলকার এর স্ত্রী।

 

নাজমুন্নাহার জানান, গত ৮ জুলাই বুধবার দুপুর ২টার দিকে আমাদের জমির উপর বসে গরুর ঘাস খাওয়াকে কেন্দ্র করে আমাদের এলাকার মিজানুর রহমান মিজু, সফি হাওলাদার ও জসিম মৃধা (সোহাগ) এরা একত্রিত হয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে চরাও হয়ে তাদের হাতে লোহার শাবল দিয়ে আমাকে এলোপাথারীভাবে পিটাতে থাকে। আমার ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী এসে পরলে মারধারকারীরা পালিয়ে যায়।

 

পরে এলাকাবাসী আমাকে উদ্ধার করে গলাচিপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ শাহারিয়া বলেন, নাজমুন্নাহার আমার চিকিৎসাধীনে ২য় তলায় মহিলা ওয়ার্ডের ৫নং বেডে ভর্তি আছে। তার মাথায় সেলাই আছে, শরীরের বিভিন্ন অংশে ফুলা জখম আছে।

 

এ বিষয় নিয়ে নাজমুন্নাহারের স্বামী জলিল মেলকার বলেন, আমার জমির উপরে বসে আমার স্ত্রীকে প্রতিপক্ষরা মারধর করেছে। আমি আপনাদের মাধ্যমে এর বিচার চাই। এ বিষয় নিয়ে সফি হাওলাদারের মুঠো ফোনে জানতে চাইলে তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

 

এ বিষয় নিয়ে ইউপি সদস্য মিজু গাজী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। ইউপি চেয়ারম্যান মো. হানিফ মিয়া বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি দেখব। রাঙ্গাবালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বলেন, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ বিষয়ে জলিল মেলকার বাদী হয়ে গলাচিপা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করবেন বলে জানান।