• ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৬শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

মঠবাড়িয়ায় ৪৩ দিন পর ইলেকট্রিক মিস্ত্রির লাশ উত্তোলন 

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত নভেম্বর ২৫, ২০২১, ১৬:২৬ অপরাহ্ণ
মঠবাড়িয়ায় ৪৩ দিন পর ইলেকট্রিক মিস্ত্রির লাশ উত্তোলন 
মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ৪৩ দিন পর বৃহস্পতিবার ইমরান গাজী (২৬) নামে এক ইলেকট্রিক মিস্ত্রির লাশ কবর থেকে

উত্তোলন করা হয়েছে।
পিরোজপুর নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট মো. নাহিদ হাসান ও ডা. প্রীতম কুমার পাইক এর উপস্থিতিতে মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা পিবিআই ইন্সপেক্টর আহসান কবির লাশ উত্তোলন করেন।
গত ১১ অক্টোবর সোমবার দুপুরে পৌর শহরের সবুজ নগর গ্রামের আউয়াল শরীফ এর নির্মাণাধীন ভবনের তৃতীয় তলায় একটি কক্ষে ফ্যান লাগানোর রডের সাথে ইমরানকে
গলায় ফাঁস লাগানো মৃতদেহ উদ্ধার করে মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ।
এ ঘটনা থানায় মামলা না নেয়ায় নিহতের ভাই আব্দুল্লাহ গাজী বাদি হয়ে ১৮ অক্টেবর ৫ জনের বিরুদ্ধে মঠবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট
আদালতে মামলা দায়ের করেন।
বিজ্ঞ আদালতের বিচারকি হাকিম মোঃ কামরুল আজাদ মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেষ্টিকেশন (পিবিআই) কে তদন্তের আদশে দেন। ইমরান গাজী পেশায় ইলেকট্রিক মিস্ত্রি ছিলেন।
সে পৌর শহরের সবুজ নগর গ্রামের মৃত মন্নান গাজীর ছেলে। মঠবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের আইনজীবী এডভোকেট নাসরিন জাহান জানান, ইলেকট্রিক মিস্ত্রি ইমরান গাজীকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে এমন অভিযোগে তার ভাই মামলা করতে গেলে থানা পুলিশ রহস্যজনক কারণে মামলা নেয়নি।
এমনকি আদালতের বহু আইনজীবির কাছে গেলেও আব্দুল্লাহ আইনী সহায়তা পায়নি। পরে তার কাছে ঘটনার বিবরণ শুনে আমি মামলা আদালতে উত্থাপন করি।
মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা পিবিআই ইন্সপেক্টর আহসান কবির বলেন, আদালতের নির্দেশে নির্বাহী ম্যজিস্টেট ও ডাক্তারের উপস্থিতিতে লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো
হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর রহস্য জানা যাবে।