• ২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১২ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

বেতাগীতে একই কায়দায় দিন-দুপুরে চুরি নিয়ে,বিপাকে ব্যবসায়ীরা

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত জুন ৯, ২০২১, ২১:৫৬ অপরাহ্ণ
বেতাগীতে একই কায়দায় দিন-দুপুরে চুরি নিয়ে,বিপাকে ব্যবসায়ীরা

স্বপন কুমার ঢালী, বেতাগী ॥ বেতাগীতে দিনের বেলা চুরির সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। পরপর একই কায়দায় চুরি সংঘটিত হওয়ায় পৌর শহরের ব্যবসায়ীরা শংকায় রয়েছে।

নতুন করে চোরের কবলে পড়েছেন বেতাগী শহরের ব্যবসায়ী চয়েস কসমেটিকস এর স্বত্বাধিকারীর মো. বাবুল মাতুব্বর। গত মঙ্গলবার(৮ জুন) দুপুরে অভিনব কায়দায় তালা ভেঙে নিমিষেই তাঁর দোকান চুরি করে। তবে চুরির হাত থেকে বাঁচার জন্য আগ থেকেই দোকানির টানানো ছিলো একটি কাপড়ের পর্দা।

কাপড়ের এ পর্দাই চোরকে আড়াল করে দেয়। আর কারণেই দোকানির জন্য কাল হয়ে দাড়ায়। দুপুর ১টার দিকে মালিক বাবুল মাতুব্বর দোকান খোলা রেখে জোহরের নামাজের উদ্দেশ্যে মসজিদে যান। নামাজ শেষে এসে দেখতে পান দোকানের ক্যাশ বাক্সে ভাঙ্গা তালা ঝুলছে। বিষয়টি তাঁর কাছে অবাক লাগে। এরপর ঢুকে দেখেন ক্যাশ বাক্সের ভেতরে রাখা তার নগদ ৪০ হাজার টাকা নেই। সব টাকা উধাও।

ওর একদিনে আগে একই কায়দায় পৌর শহরের দুলাল সু-স্টোরের মালিক মো. দুলাল দুপুরে জোহরের নামাজ আদায়ের জন্য মসজিদে গিয়ে ছিলেন। ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, এর কয়েক মিনিটের মধ্যেই ঠিক ১ টা ২১ মিনিটের সময় লাল স্টেপের হাফ গেঞ্জী পরিহিত মধ্যে বয়েসী একজন দোকানের ভেতরে প্রবেশ করেন। এর ৫ মিনিটের মাথায় ঠিক ১ টা ৩২ মিনিটের দিকে চোর তালা খুলে ৭০ হাজার টাকা লুট করে স্থান ত্যাগ করে যাচ্ছে।

মো: আবু তাহের একজন অবসরপ্রাপ্ত তহশীলদার। তিনি বৃহস্পতিবার (২৭ মে) বেলা ১২ টার দিকে সোনালী ব্যাংক বেতাগী শাখা থেকে ১০ হাজার টাকার অবসর ভাতা উত্তোলন করে হাতে থাকা লালবর্ণের একটি শপিং ব্যাগে রেখে চা পান করতে আসেন বেতাগী পৌর শহরের খাসকাচারি মাঠে । তাঁর ভাষ্যনুযায়ী, মাঠের ভেতরে সেখানে একটি বেঞ্চের উপড় বসে মুঠোফোনে কথা বলছিলেন, সময় মাত্র দুই থেকে তিন মিনিট এরই মধ্যে দেখাতে পান পাশে থাকা ব্যাগটি নিমিষেই উধাও।

ধারনা করা হচ্ছে, ব্যাংক থেকে ভাতা উত্তোলনের আগ থেকেই চোরেরা তাঁকে নজড়ে রাখছিলো। চোরের কবলে পড়ে সবচেয়ে নি:স্ব হয়ে পড়েছে বেতাগী পাইলট সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন ইসলামিয়া অপটিক্যালের মালিক ইছা হাওলাদার। গত ২০ ফ্রেরুয়ারি সকালে তাঁর প্রতিষ্ঠানে চোর হানা দিয়ে ৫ লাখ ২৯ হাজার টাকা নিয়ে কেটে পড়ে।

চলতি বছরের মার্চে দিনের বেলা বেতাগী বন্দর ব্যবসায়ী সমিতির সদস্য সচিব রুপালী এন্টারপ্রাইজের মালিক আ: আজিজের টিনের দোকানের বাক্সের তালা খুলে ৩৫ হাজার ৬‘শ টাকা নিয়ে চোর পালিয়ে যায়। বেতাগী বাসষ্ট্যান্ডের জিনিয়াস টেলিকমের মালিক মো: শাহীনের দোকানে দুপুর ৩ টার দিকে চোর হানা দিয়ে দুইটি মোবাইল সেট সহ ২৬ হাজার টাকা নিয়ে সটকে পড়ে। শহরের সিকদার এন্টারপ্রাইজের মালিক বেল্লাল হোসেনের ঘরেও চোর হানা দিয়ে চুরির চেষ্টা চালায়।

এ ছাড়াও গত ২২ মে গাছ ব্যবসায়ী জাঙ্গীর খানসহ একাধিক ব্যক্তির মুঠোফোন ও নগদ টাকা চোর নিয়ে যায় বলে এমনটাই জানায় ভূক্তভোগিরা। সিসি ক্যামেরার ছবি দেখে মনে হচ্ছে একই ব্যক্তি একর পর এক এসব চুরিগুলো সংঘটিত করছে। কিন্ত আজও কাউকে শনাক্ত করা যায়নি। পৌর শহরের ব্যবসায়ীরা এর দ্রুত প্রতিকার চান। তাই এ জন্য প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন তাঁরা।

এসব বিষয় নিয়ে বেতাগী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, থানা পুলিশে বিশেষ টিম নজরদারীতে রয়েছে। কাউকে শনাক্ত করতে পারলে তাঁর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা