• ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৬শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

বানারীপাড়ায় পরীক্ষিত একজন জিয়ার সৈনিক আব্দুস সালাম

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত নভেম্বর ২৩, ২০২১, ২০:৩২ অপরাহ্ণ
বানারীপাড়ায় পরীক্ষিত একজন জিয়ার সৈনিক আব্দুস সালাম

মো. সুজন মোল্লা, বানারীপাড়া : রাজনীতির অনুসন্ধানে জানা যায়, বরিশালের বানারীপাড়ায় একজন জাতীয়তাবাদী সৈনিকআব্দুস সালাম। তিনি পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক। ১৯৮২ সালে স্কুল জীবনে ছাত্রদলেররাজনীতির মধ্য দিয়ে তার রাজনীতিতে হাতে খড়ি। কিশোর মনে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউররহমানকে স্থান দেওয়ার পর থেকে আজও তিনি তাঁর আদর্শ হৃদয়ে ধারণ করে রাজনীতির মাঠেসক্রিয় রয়েছেন।

১৯৮৭ সালে বানারীপাড়া ডিগ্রী কলেজ শাখা ছাত্রদলের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ারমধ্য দিয়ে সক্রিয় রাজনীতিতে অভিষেক ঘটে আব্দুস সালামের। এরপর ১৯৮৭-১৯৯১ মেয়াদে উপজেলাছাত্রদলের প্রচার সম্পাদকের দায়িত্ব পালণ করেন তিনি।

 ১৯৯৮-২০০৮ মেয়াদে পৌর যুবদলের সভাপতি ও আহবায়কের দায়িত্ব পালণ করারপাশাপাশি তিনি পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে মাঠ পর্যায়ে দলকে সংগঠিত করার প্রত্যয়েকাজ করে সফল হন। তার সেই সাফল্যে ২০১৭ সালে সম্মেলনের মাধ্যমে পৌর বিএনপির সাধারণসম্পাদক’র পদে আসীন হন তিনি।

সরকার বিরোধী সকল আন্দোলন সংগ্রামে সন্মূখভাগের এনেতা ১৯৯০ সালে জেনারেল এরশাদ সরকার বিরোধী গণ আন্দোলনে ভূমিকা রাখতে গিয়েদু’বার গ্রেপ্তার হয়ে কারাবাস করেন। ২০১৯ সালে রাজনৈতিক মামলায় তিনি তৃতীয় বারের মতোদীর্ঘদিন কারাবাস করেন বলে জানা যায়।

২০০৬-২০০৮ সালে জাতীয় শ্রেষ্ঠ পুরস্কারপ্রাপ্ত বানারীপাড়া বন্দর মডেল সরকারিপ্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি, ২০০৮-১১ ও ২০১৪-১৬ সালে ঐতিহ্যবাহীবানারীপাড়া ইউনিয়ন ইনস্টিটিউশনের (পাইলট) পরিচালনা পর্ষদ  এবং  ২০১১-১৪ ও ২০১৭-২০২০ সালে বানারীপাড়া ডিগ্রীকলেজের গভর্নিং বডির নির্বাচিত অভিভাবক সদস্য হিসেবে তিনি শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়েআনা ও শিক্ষার মানোন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা পালন করেন এ উপজেলায়।

 এছাড়া বানারীপাড়া বন্দরবাজার ব্যবসায়ী সমিতির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে আসীন থেকে তিনি ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদেরস্বার্থ সংরক্ষণে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছেন। ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনকে তিনি এক সময়সমৃদ্ধ করে ব্যাপক পরিচিতি অর্জন করেন বলে অনুসন্ধান কালে উঠে আসে।

 বিএনপির দুঃসমেয়র ত্যাগী, পরীক্ষিত জিয়া অন্তপ্রাণ এ নেতা  জাতীয়তাবাদী রাজনীতি করতে গিয়ে ব্যবসায়িকভাবেঅনেক পেছনে গিয়েও দলকে সাজাতে এবং মাঠে শক্তিশালী করতে এখনও নিজ অর্থ ব্যয় করে প্রান্তিকপর্যায়ে নেতাকর্মীদের খোঁজ-খবর রাখছেন বলে মাঠ পর্যায় থেকে জানাগেছে।

মাঠ পর্যায়েরবিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী এবং সমর্থকরা বলছেন, এ রকম একজন আব্দুসসালামই দলের এই দুঃসময়ে একটি প্লাটফর্ম। যা অনুকরণীয় হয়ে থাকবে জাতীয়তাবাদীরাজনীতিতে।