• ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২০শে সফর, ১৪৪৩ হিজরি

বাউফলে সেতু নির্মাণে ধীরগতি, বেড়েছে জনদুর্ভোগ

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১, ১৬:২৬ অপরাহ্ণ
বাউফলে সেতু নির্মাণে ধীরগতি, বেড়েছে জনদুর্ভোগ

বিডি ক্রাইম ডেস্ক, বরিশাল: পটুয়াখালী জেলার বাউফল উপজেলার পৌরশহরে গোলাবাড়ি-কালিশুরী সড়কের চন্দ্রপাড়া খালের ওপর আরসিসি গার্ডার সেতুর নির্মাণকাজ চলছে ধীরগতিতে।

দেড় বছরেও সেতুটির কাজ শেষ না হওয়ায় জনসাধারণের দুর্ভোগ বেড়েছে। এ ছাড়া যানবাহন চলাচলে তৈরি হয়েছে প্রতিবন্ধকতা।

পটুয়াখালী সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, বাউফল উপজেলার গোলাবাড়ি-কালিশুরীর ১৫.৮৯ কিলোমিটার সড়কে ছোট বড় মিলিয়ে ছয়টি সেতুর জন্য মোট ৫২ কোটি টাকার দরপত্র আহ্বান করা হয়।

মেসার্স মাহফুজ খান এন্টারপ্রাইজ নামের একটি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান এর নির্মাণকাজ পায়। এ সকল সেতুর নির্মাণকাজ ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে শেষ করার কথা ছিল।

এর মধ্যে চন্দ্রপাড়া খালের ওপর ২৫ মিটার দৈর্ঘ্য একটি সেতুর জন্য ৪ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। সড়ক ও জনপথ বিভাগ আগের পুরোনো সেতুটিকে ভেঙে সেখানে একটি আরসিসি গার্ডার সেতু নির্মাণকাজ শুরু করেন।

কিন্তু দীর্ঘ দেড় বছর পার হলেও সেতুটির নির্মাণকাজ শেষ না হওয়ায় চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন স্থানীয়রা। এ ছাড়া বাইপাস সড়ক দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে যানবাহন।

মদনপুরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. গোলাম মোস্তফা অভিযোগ করে বলেন, ‘এই সড়কে সেতু নির্মাণ ধীরগতিতে চলায় এলাকাবাসী দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। এ ছাড়া পূর্বের সেতুর পুরোনো মালামালগুলো অযত্ন অবহেলায় নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।’

এ ব্যাপারে মেসার্স মাহফুজ খান এন্টারপ্রাইজের দায়িত্বপ্রাপ্ত উত্তম কুমার দাস বলেন, ‘সেতুর পাশের জমি নিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে সমস্যার তৈরি হওয়ায় কাজ শেষ করতে দেরি হচ্ছে। জমির সমস্যা সমাধান হলে দ্রুত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করা হবে।’

পটুয়াখালী সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী কামরুল হাসান বলেন, সেতুটির গার্ডার নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে, এখন আর বেশি সময় লাগবে না।

জমি নিয়ে যে সমস্যা রয়েছে তা দ্রুত সময়ের মধ্যে সমাধান করে কাজ শেষ করা হবে। এ ছাড়া পূর্বের সেতুর পুরোনো মালামালগুলো সরিয়ে নেওয়ার জন্য উপজেলা প্রকৌশলীকে বলা হয়েছে।