• ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৪ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১৪ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনাম
ভোলায় ইয়াবা ও গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক মঠবাড়িয়ায় চঞ্চল্যকর সোবাহান পেয়াদা হত্যা মামলার ২ পালাতক আসামী গ্রেফতার রাজাপুরে মাঠজুড়ে হলুদের সমারোহ, কৃষকের মুখে হাসি বানারীপাড়ায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীসহ ৩জন বহিস্কার ভোলায় বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ বেদে নারী আটক বরিশাল কারাগারে বিভিন্ন উপকরণ বিতরণ করেন নবাগত জেলা প্রশাসক কলাপাড়ায় বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী দিদার উদ্দিন আহমেদ আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার গলাচিপায় রামনাবাদ নদীর উপরে প্রস্তাবিত ব্রিজের জায়গা পরিদর্শনে এমপি শাহজাদা আমাদেরকে কথায় নয় কাজে বড় হতে হবে: ডিসি ট্রাফিক জাকির হোসেন আমাদের উদ্দেশ্য মানবাধিকারকে সমুন্নত রেখে আইন শৃংখলা ঠিক রাখতে হবে: ডিসি খাইরুল আলম

বরিশালে সরকারি ঘর ও ভাতা পায়নি মুক্তিযোদ্ধা শহীদ বীর বিক্রমের পরিবার

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত জানুয়ারি ১০, ২০২১, ১৯:২৩ অপরাহ্ণ
বরিশালে সরকারি ঘর ও ভাতা পায়নি মুক্তিযোদ্ধা শহীদ বীর বিক্রমের পরিবার

উজিরপুর প্রতিনিধি ॥ বরিশালের উজিরপুরে সরকারি ঘর ও খেতাব ভাতা পায়নি মুক্তিযুদ্ধের বীর সেনানী বীর বিক্রম শহীদ মুজিবুর রহমানের পরিবার।

উপজেলার গুঠিয়া ইউনিয়নের কমলাপুর গ্রামের মৃত সিরাজ উদ্দিন হাওলাদারের বড় ছেলে পাকিস্তান সেনাবাহিনী থেকে পালিয়ে এসে ১৯৭১ সালে পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে কুমিল্লার চান্দুরা এলাকায় সম্মুখ যুদ্ধে অংশগ্রহন করে ৬ ডিসেম্বর ঐ যুদ্ধে শহীদ হন তিনি।

৪ ভাই ১ বোনের মধ্যে তিনি সবার বড়। শহীদ বীর মুজিবুর রহমানকে ওই এলাকাই দাফন করেন মুক্তিযোদ্ধারা।

১৯৭৩ সালে স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার পিতাকে ২ হাজার টাকা সম্মানি ভাতা ও একটি চিরকুট পাঠিয়েছিলেন। বর্তমানে তার পরিবার সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে মুক্তিযোদ্ধার সাধারণ ভাতা পেলেও পাননি কোন খেতাব প্রাপ্ত ভাতা, নেই কোন তার ভাইদের মাথা গোজার ঠিকানা ঘর।

বার বার নদী ভাঙ্গনে জমি হারিয়ে কোন রকমে সামান্য জমি ক্রয় করে ঝুপরি ঘরে বসবাস করছেন তাদের পরিবার। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের জন্য আবাসন নির্মাণ প্রকল্প চালু করলেও ওই পরিবার একটি সরকারি ঘরের জন্য আবেদন করলেও ভাগ্যে জোটেনি সরকারি ঘর।

 

জানা যায় ওই উপজেলায় দুজন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ বীর বিক্রম খেতাবে ভূষিত হয়েছেন তিনি তাদের মধ্যে একজন। ইতিমধ্যে তার পরিবার প্রথম শ্রেণির ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের নোটারি পাবলিক এর মাধ্যমে শহীদ মুজিবুর রহমানের সেজ ভাই মোঃ হারুন অর রশিদ হাওলাদার উত্তরাধিকারী ক্ষমতা প্রাপ্ত হন। তার মেজ ভাই আঃ রশিদ হাওলাদার একজন অবসর প্রাপ্ত সেনা সদস্য ২ ছেলে ২ মেয়ে নিয়ে কোন রকমের দিনাতিপাত করছেন।

সেজ ভাই কৃষক হারুন অর রশিদ হাওলাদার ১ মেয়ে ৩ ছেলে নিয়ে ঝুপরি ঘরে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। ছোট ভাই নিরাপত্তা প্রহরী সেলিম হাওলাদার ২ বেকার ছেলে নিয়ে ভাড়া বাসায় বসবাস করছেন। শহীদ মুজিবুর রহমান বীর বিক্রমের রয়েছে সশস্ত্র বাহিনী শহীদ গেজেট নং-১৩৪২, খেতাবপ্রাপ্ত খেতাব সনদপত্র নং-০৮১, খেতাব গেজেট নং-১৫৬ এবং ভারতীয় তালিকা নং-৪৬১৬৯,বই নং- ১৯।

 

লাল মুক্তিবার্তা নং-১৫৬। শহীদ মুজিবুর রহমানের ভাই অসহায় দরিদ্র কৃষক হারুন অর রশিদ(৬৮) জানান আমরা একটি সরকারি ঘরের জন্য আবেদন নিবেদন করেও সুফল পাচ্ছি না। উপজেলায় নেই কোন শহীদের তালিকায় নামফলক।

 

মুক্তিযোদ্ধা ও বীর বিক্রম খেতাব প্রাপ্ত ভাতা পাওয়ার দাবী তাদের। তিনি আরো জানান মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে তাদের দাবী ঐ পরিবারের সন্তানদের যেন মুক্তিযোদ্ধা কোঠায় চাকুরী পাওয়ার সুযোগ হয়।