• ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১৫ই রজব, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনাম

বরিশালে মায়ের হত্যাকারীর সর্ব্বচ শাস্তির দাবীতে পরিবারের মানববন্ধন

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত জানুয়ারি ২৫, ২০২১, ১৪:৩২ অপরাহ্ণ
বরিশালে মায়ের হত্যাকারীর সর্ব্বচ শাস্তির দাবীতে পরিবারের মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বরিশাল নগরীর ২৮ নং ওয়ার্ডের শেরে বাংলা সড়কের মা মঞ্জিলের বড় ভাইর স্ত্রী বিলকিস বেগমেকে (৭) বসরের নাবালক শিশু সন্তান ইমন শরীফের চোকের সামনে আপন ছোট চাচা আলম শরীফ ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করার আসামীকে দেশের প্রচালিত আইনের সর্ব্বচ আইনের মাধ্যমে শাস্তি দেয়ার দাবী করে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে নিহতের নাবালক সন্তান ইমন শরীফ(১৪) ও ছোট ভাই শান্ত শরীফ (১২),সহ আপনজন ও স্থানীয় এলাকাবাশী।

আজ সোমবার (২৫ই) জানুয়ারী সকাল সাড়ে ১১টায় নগরীর প্রাণকেন্দ্র সদররোডে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় নিহত বিলকিস বেগমের সেদিনের প্রত্যক্ষদর্শী ছেলে ইমন শরীফ কান্না কন্ঠে তার মায়ের হত্যাকারীকে ন্যায় বিচারের মাধ্যমে দেশের প্রচালিত আইনের মাধ্যমে শাস্তির দাবী করেন।

বর্তমানে হত্যাকারী আলম শরীফের পক্ষ অবলম্বনকারীরা মামলার বাদী বিলকিস বেগমের পিতা মফিজ উদ্দিন হাওলাদার (৭০)কে মামলা তুলে নেয়ার জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রলোভন সহ নাতীদেরকে হত্যার হুমকি প্রদান করা হচ্ছে বলে মানববন্ধন কর্মসূচিতে ইমন শরীফ ও ছোট ভাই শান্ত শরীফ অভিযোগ করেন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন মামলার বাদী মফিজ উদ্দিন হাওলাদার, ইমনের নানী শাহিনুর বেগম,মামা মোঃ সিব্বির আহমেদ,মোঃ বসির আহমেদ,মোঃ নাসির উদ্দিন সহ স্থানীয় এলাকাবাশী।

উল্লেখ্য ২০১৩ সালের ১৪ই ডিসেম্বর রাত আনুমানিক ৮টার দিকে বিলকিস বেগমের ছোট দেবর আলম শরীফ বিলকিস বেগমের ব্যাংকের চেক চুরি করে সেখানে ১লক্ষ টাকা বসিয়ে স্বাক্ষর করতে বলে।

চেকের পাতায় স্বাক্ষর না করায় এক প্রর্যায়ে কথা কাটাকাটির মধ্যে বিলকিস বেগমকে ইমন (৭) এর সামনে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হাত,কান কুপিয়ে গুরুতর জখম করে পালিয়ে যায়।

ছেলে ইমনের চিৎকারে এলাকাবাশীরা এগিয়ে এসে প্রথমে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরবর্তীতে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ৫১দিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এঘটনায় বিলকিসের পিতা মফিজ উদ্দিন হাওলাদার বাদী হয়ে (বিএমপি) এয়ারপোর্ট থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

পরবর্তীতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস,আই সুলতান আহমেদ হত্যাকারী আলম শরীফের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ চার্জসিট দাখিল করে।

হত্যার পরপরই আলম শরীফ বরিশাল থেকে দীর্ঘ ৭ বসর পালিয়ে নিজের জাতীয় পরিচয়-পত্র পরিবর্তন করে দেশ-বিদেশে আত্বগোপন ও পালিয়ে জীবন-যাপন করে চলতে থাকে।

অবশেষে গত সোমবার (১৮ই) জানুয়ারী ভোররাতে বরিশাল নৌ-বন্দর ঘাটে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহি এমভি ফারহান লঞ্চ থেকে এয়ারপোর্ট থানার এস.এস আই আব্দুর রাজ্জাক,এস,এস আই কামাল হোসেন ও এ.এস আই মাহমুদ অভিযান চালিয়ে বিশেষ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আলম শরীফকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

পরে আদালতে হাজির করা হলে আদালত আলম শরীফকে জেল হাজতে প্রেরন করার নির্দেশ দেন।