• ৩রা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ৬ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগ ও জিডি

বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানের বাধায় বন্ধ নদী ভাঙন রোধের কাজ!

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত আগস্ট ১০, ২০২২, ১৭:৪৫ অপরাহ্ণ
বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানের বাধায় বন্ধ নদী ভাঙন রোধের কাজ!

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল: তেঁতুলিয়া নদীর ভাঙ্গনরোধে পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধীনে মেগা প্রকল্পের কাজে ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক বাঁধা প্রদান, কর্মকর্তাদের হুমকি ও শ্রমিকদের মারধরের ঘটনায় থানায় পৃথকভাবে দুইটি সাধারণ ডায়েরী ও একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অপরদিকে দুর্গাপাশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হানিফ তালুকদার ও তার সহযোগীরা প্রকাশ্যে হামলা চালিয়ে কাজ বন্ধ করে দেওয়ার ঘটনায় ভাঙ্গন কবলিত নদীপাড়ের বাসিন্দাদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুর্গাপাশা ইউনিয়নের।

অভিযুক্ত হানিফ তালুকদার দুর্গাপাশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। বুধবার সকালে লিখিত অভিযোগপ্রাপ্তি ও সাধারণ ডায়েরীা সত্যতা স্বীকার করে বাকেরগঞ্জ থানার ওসি মোঃ আলাউদ্দিন মিলন বলেন, পুরো ঘটনার তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মের্সাস হুদা ট্রেডার্সের স্বত্তাধীকারি মোঃ নাজমুল হুদা, সাধারণ ডায়েরী করেছেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ রেজাউল করিম ও সাব কন্ট্রাক্টর জিএম মাসুদ।

সূত্রমতে, তেঁতুলিয়া নদীর বাকেরগঞ্জ উপজেলার দূর্গাপাশার ভাঙ্গন কবলিত এলাকা রক্ষায় সরকারীভাবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৭নং প্যাকেজে মেগা প্রকল্পের কাজ অতিসম্প্রতি শুরু করা হয়।

প্রকল্পের সাব-কন্ট্রাক্টর জিএম মাসুদ বলেন, গত ৬ আগস্ট দুপুরে ইউপি চেয়ারম্যান হানিফ তালুকদার তার সহযোগীদের নিয়ে প্রকল্পের কাজে ব্যবহৃত বলগেটের চালককে মারধর করে মোবাইল ফোন ভেঙ্গে ফেলে।

হানিফ তালুকদার ও তার সহযোগীদের অব্যাহত হুমকির মুখে বলগেটের চালক পালিয়ে যায়। এছাড়াও প্রকল্পে কর্মরত পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা ও টাক্সফোর্সের সদস্যদের অকথ্য ভাষায় গালাগালি করা হয়।

তিনি (মাসুদ) আরো বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান হানিফ তালুকদার তার ঘনিষ্ঠ সহযোগী জাকির জোমাদ্দারের মাধ্যমে নদী ভাঙ্গনরোধের সরকারী কাজ বাস্তবায়ন করতে হলে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। তাদের দাবীকৃত চাঁদার টাকা না দেয়ার কারণেই ইউপি চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়েছেন।

স্থানীয় নদীভাঙ্গন কবলিত ভূক্তভোগী একাধিক বাসিন্দারা ভাঙ্গনপ্রতিরোধের কাজ বন্ধ করে দেয়ায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

তারা ভাঙ্গনরোধে প্রকল্পের কাজ দ্রুত চালু করে ইউনিয়নকে রক্ষার দাবী করেছেন। এজন্য তারা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী দিপক চন্দ্র দাস বলেন, দূর্গাপাশা ইউপি চেয়ারম্যান ও তার সহযোগীরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করে প্রকল্প এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে।

বর্তমানে প্রকল্প এলাকায় কর্মকর্তাদের অবস্থান নিরাপদ না হওয়ায় থানায় সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে।

চাঁদা দাবি, মারধর ও হুমকির অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান হানিফ তালুকদার বলেন, নিন্মমানের কাজ করার অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে কর্মকর্তাদের সঠিক নিয়মে কাজ করতে বলা হয়েছে। বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে তারা আমার বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালাচ্ছে।