• ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ১০ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

পাকিস্তানের নির্বাচনে এগিয়ে কোন কোন দল, কারা পিছিয়ে

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২৪, ১৪:২০ অপরাহ্ণ
পাকিস্তানের নির্বাচনে এগিয়ে কোন কোন দল, কারা পিছিয়ে

বিডি ক্রাইম ডেস্ক, বরিশাল॥ পাকিস্তানে বহুল আলোচিত জাতীয় নির্বাচনে ভোটগ্রহণের পর এবার চলছে গণনার পালা। তবে ভোটগ্রহণের পর দীর্ঘ সময় পার হলেও এখনও ফলাফল না আসায় এ নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। এমনকি ভোট গণনায় এমন বিলম্বকে অস্বাভাবিক বলছেন বিশ্লেষকরা।

শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) সংবাদমাধ্যম দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে, নির্বাচনের ফলাফলের দৌড়ে এগিয়ে রয়েছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই)। দলটি ও তাদের সমর্থিত প্রার্থীরা পেয়েছেন ছয়টি আসন। যা এখন পর্যন্ত পাওয়া ফলাফলে সর্বোচ্চ।

সংবাদমাধ্যমটির তথ্যানুসারে, এরপরই রয়েছে পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি)। দলটি এখন পর্যন্ত চারটি আসন পেয়েছে। এরপর তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে আরেক সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল-এন। দলটি পেয়েছে তিনটি সংসদীয় আসন।

অন্যদিকে পাকিস্তানের আরেক প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম ডন জানিয়েছে, নির্বাচনে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল-এন ৯টি আসন পেয়েছে। আর ইসরান খানের দল পিটিআই ছয়টি আসন পেয়েছে। এছাড়া পিপিপি পেয়েছে ছয়টি আসন।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার ১৩ ঘণ্টা পরও অধিকাংশ কেন্দ্রে ফলাফল ঘোষণা শুরু হয়নি। ভোট গণনায় এমন বিলম্বকে অস্বাভাবিক বলছেন বিশ্লেষকরা। নির্বাচনের পরদিন শুক্রবার স্থানীয় সময় সকাল পর্যন্ত মাত্র ১২টি আসনের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। এদিকে ফলাফল প্রকাশে দেরি হওয়ায় নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ তুলেছে ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই)।

দেশটির প্রভাবশালী পত্রিকা ডন বলছে, ফলাফল প্রকাশ হওয়া ১২ আসনের মধ্যে পিটিআই সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী ৫টিতে, পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজের দল পিএমএল-এন ৪টিতে এবং পাকিস্তান পিপলস পার্টি বা পিপিপি তিনটিতে জয়ী হয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার ভোটগ্রহণের দিন দেশজুড়ে মোবাইল ফোন সংযোগ স্থগিত করা হয়। এ ছাড়া বোমা হামলা ও নানা সহিংসতায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে নির্বাচন। এরপর ভোটগ্রহণ শেষে ফল ঘোষণায় ধীরগতি দেখা যাওয়ায় এসব সহিংসতা এবং ইন্টারনেট সমস্যাকে দায়ী করেছে পাকিস্তান নির্বাচন কমিশন। কেন্দ্র থেকে ফল আসতে অস্বাভাবিক ধীরগতির কথা জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্সও।

যদিও কারাগারে বন্দি সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল পিটিআই বলছে, ফল প্রকাশে এই বিলম্ব ভোট কারচুপির লক্ষণ। এবারের নির্বাচনে ইমরান খানকে অযোগ্য ঘোষণা করা হয়েছে। বাধ্য হয়ে এবারের নির্বাচনে স্বতন্ত্র হিসেবে প্রার্থী দিতে হয়েছে ইমরানের দল পিটিআইকে।