• ১৯শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৫ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

ট্রাম্পের উসকানিতে কংগ্রেসে হামলা

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত জানুয়ারি ৭, ২০২১, ১৪:৪৫ অপরাহ্ণ
ট্রাম্পের উসকানিতে কংগ্রেসে হামলা

ট্রাম্পের উসকানিতে কংগ্রেসে হামলা, নিজ দলের নেতাদের দাবি
যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে নজিরবিহীন হামলার জন্য প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকেই দায়ী করছেন তার দল রিপাবলিকান পার্টির নেতারা। বিবিসি এ খবর দিয়েছে।

এ ঘটনায় নিন্দা প্রকাশ করে তারা বলেন, ট্রাম্পই জনতাকে সংগঠিত করেছেন, হামলার জন্য প্ররোচনা ও উসকানি দিয়েছেন।

নর্থ ক্যারোলিনার রিপাবলিকান সিনেটর রিচার্ড বার বলেন, ‘আজকে ঘটনার জন্য প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের দায় বহন করে। তিনি ভিত্তিহীন ষড়তন্ত্র তথ্যকে প্রোমোট করেছেন, যা পরিস্থিতিকে এই দিকে নিয়ে গিয়েছে।’

ওয়াইয়োমিংর রিপাবলিকান নেতা ও প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য লিজ চেনি বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট উন্মত্ত জনতাকে সংগঠিত করেছেন, এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই। তিনি বক্তব্য দিয়ে তাদের উসকে দিয়েছেন।’

নভেম্বরের নির্বাচনে জয় লাভ করা জো বাইডেনকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রেসিডেন্ট হিসেবে অনুমোদনের জন্য বুধবার আইন-প্রণেতারা অধিবেশনে বসেন।

সেসময় পরাজয় মেনে নিতে অনিচ্ছুক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নামে স্লোগান দিয়ে তার সমর্থকেরা কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটলে ঢুকে নজিরবিহীন হামলা ও ভাঙচুর চালায়। সহিংসতায় নিহত হন চারজন।

এ ঘটনার জেরে জো বাইডেনকে সমর্থন দিয়েছেন ওয়াশিংটন থেকে নির্বাচিত রিপাবলিকান কংগ্রেস সদস্য ক্যাথি ম্যাকমোরিস। তিনি বলেন, ‘আজকের ঘটনা অগ্রহণযোগ্য, বেআইনি।’

ট্রাম্পের প্রতি নিন্দা জানিয়ে তার প্রতি ম্যাকমোরিস আহ্বান করেন, এই ‘উন্মাদনার’ অবসান ঘটাতে।

কংগ্রেসের সহিংসতায় নিন্দা জানিয়েছেন কলোরাডো অঙ্গরাজ্যের রিপাবলিকান নেতৃবৃন্দ।

কেন্দ্রীয় রিপাবলিকান পার্টির কমিউনিকেশন ডিরেক্টর মিখাইল আরেন্স এক টুইটে এ ঘটনাকে ‘অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাস’ বলে আখ্যা দেন।

তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতার জন্য আমেরিকার পতাকা হাতে আমাদের সেনারা প্রাণ দিয়েছে। ভিত্তিহীন ষড়যন্ত্র তত্ত্বের নামে সেই পতাকা উড়িয়ে আজ জাতির অসম্মান দেখতে হলো।’

এদিকে পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাজধানী ওয়াশিংটনে ১৫ দিন পর্যন্ত জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। অতিরিক্ত কয়েক হাজার সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।