চরফ্যাশনে নন এমপিভূওভূক্ত শিক্ষক কর্মচারীর মানবেতর জীবন যাপন - বিডি ক্রাইম ২৪

চরফ্যাশনে নন এমপিভূওভূক্ত শিক্ষক কর্মচারীর মানবেতর জীবন যাপন

অধিকাংশ প্রতিষ্ঠান ২০/২২ বছরেও এমপিও হয়নি

প্রকাশিত: ৪:৩৪ অপরাহ্ণ, জুন ২৯, ২০২০

চরফ্যাশনে নন এমপিভূওভূক্ত শিক্ষক কর্মচারীর মানবেতর জীবন যাপন

আমির হোসেন চরফ্যাশন॥

চরফ্যাশন উপজেলার ১৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় দেড়শ শিক্ষক কর্মচারী বেতন-ভাতা না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। সরকার আসে আর যা কিন্তু এই সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কেউ খবর রাখেনা।

 

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ননএমপিওভূক্ত ১৫টি প্রতিষ্ঠান নিয়মিত পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের সকল নিয়ম মনে প্রতিষ্ঠান গুলো শিক্ষক্রম অফিস, নবায়ন ও কমিটির মাধ্যমে চালিয়ে যাচ্ছে। এমপিও ভূক্তির বিষয়টি সরকারের আমাদের কোন কিছু করার নেই।

 

উপজেলার নুরাবাদ নিম্ম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সুজায়েত উল্লাহ বলেন, আমাদের বিদ্যালয়টি ১৯৯৭সালে আওয়ামী লীগের আমলে প্রতিষ্ঠান লাভ করে ১-১-২০০০সালে পাঠদান পেয়েছে। ১লা জানুয়ারী/ ২০০৪সালে একাডেমিক স্বীকৃতি লাভ করে প্রতিষ্ঠান সরকারী বিধিমোতাবেক পারিচালিত হয়ে আসছে। বিএনপির আমলে একটি এমপিও ও আওয়ামী লীগের ১২ বছরের ৩ বার নতুন(৩ সনে) এমপিও ভূক্ত হয়েছে। উপজেলার এই সকল প্রতিষ্ঠান অজ্ঞাত কারণে এমপিভূক্তি হচ্ছেনা।

 

হাজারীগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুল খালেক বলেন, আমার প্রতিষ্ঠান জে.এস.পি এস.এস.সিতে ভাল ফলাফল করেও এমপিওর তালিকায় অর্ন্তভূক্ত হতে পারছিনা। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সকল ক্যাটাগরি পুরন হয়েছে যখন এমপিওভূক্তি হয় আমাদের প্রতিষ্ঠান বাদ পরে।

 

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নন এমপিওভূক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্যে প্রণোদনা ঘোষণা করেছেন শিক্ষক ৫হাজার কর্মচারী আড়াই হাজার টাকা প্রদান করা হবে। এই টাকা কতমাস দিবে না একবারই দিবে তা নিদ্দিষ্ট করে বলা নেই। উপজেলায় এই শিক্ষক কর্মচারীরা প্রাভেট পড়াইয়া পরিবার নিয়ে ডাল-ভাত খেত করোনার জন্যে তাও বন্ধ রয়েছে। আর এই সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারীদের সামনে যদি ঈদ আসে তাহলে ছেলে সন্তানের জন্যে নতুন পোষাকও ক্রয় করা সম্ভাব হয়না।

 

অধিকাংশ পরিবার কোরবানীর ঈদে কোরবানী দেয়া সম্ভাব হয়না। নিম্ম মধ্যভিত্ত আয়ের দেশে শিক্ষক কর্মচারীর বছরের একবার গরুর মাংশ দিয়ে নিজ ঘরে খাবার যোগাতে পারেনা। ফলে চরফ্যাশন উপজেলার দেড়শ‘ শিক্ষক কর্মচারী পরিবারের দিন চলছে বড়ই দূর্দিনে। চরফ্যাশন উপজেলা নন এমপিভূক্ত শিক্ষকের দাবী কোন প্রণোদনার প্রয়োজন নেই সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একসাথে এমপিওভূক্ত করার। চরফ্যাশন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জিয়াউল হক মিলন বলেন, ননএমপিওভ্ক্তূ শিক্ষকদের চেহারার দিকে তাকালে আমার খুব খারাপ লাগে। আমিও চাই শিক্ষার মানউন্নয়নে এমপিওভূক্ত করলে এই সকল প্রতিষ্ঠানে লেখা-পড়া আরো ভাল হবে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ