• ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১৫ই রজব, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনাম

গৌরনদী পৌরসভা নির্বাচনে ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত জানুয়ারি ২৭, ২০২১, ১৬:৩৮ অপরাহ্ণ
গৌরনদী পৌরসভা নির্বাচনে ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি:

বরিশালের গৌরনদী পৌরসভা নির্বাচনে আচরন বিধি লঙ্ঘনের পাশা পাশি প্রাণনাশের হুমকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।
আসন্ন গৌরনদী পৌরসভা নির্বাচনে ৫নং ওয়ার্ড (চরগাধাতলী-তিখাসার) এলাকার সাধারন কাউন্সিলর প্রার্থী মোঃ রেজাউল করিম টিটুর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে অপর প্রার্থী জি এম আমিনুল ইসলাম।

তিনি ডালিম মার্কা নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্ধীতা করছেন।তার একক প্রতিদন্ধী প্রার্থী মোঃ রেজাউল করিম টিটুর বিরুদ্ধে প্রথমে গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পরে সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার বরাবর আচরন বিধি লঙ্ঘন এবং গৌরনদী পৌরসভা নির্বাচন ২০২১ এর সংহিংসতার অভিযোগ এনে লিখিত অভিযোগ প্রদান করেছেন
একই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী জি এম আমিনুল ইসলাম।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে মোঃ রেজাউল করিম টিটু গৌরনদী পৌরসভা নির্বাচনে ৫ নং ওয়ার্ডের (চরগাধাতলী-তিখাসার) এলাকার কাউন্সিলর প্রার্থী হয়ে আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।
অভিযোগে উল্লেখ করে জি এম আমিনুল ইসলাম জানায় নির্বাচনী প্রতীক ডালিম মার্কা পাওয়ার পর থেকেই আমার সমর্থনকারী কর্মী ও সাধারণ ভোটারদের মাঝে আমার বিরদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার সহ নির্বাচন প্রচারণা কারীদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন।

একই সাথে নির্বাচনী এলাকায় বহিরাগত বিভিন্ন মাদক সেবী ও সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে নির্বাচনী প্রচারনা সহ সাধারন ভোটারদের মাঝে ভিতির সৃষ্টি করে যাচ্ছেন প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী।

এই পরিস্থিতি নিরসনে তাৎক্ষণিক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও স্থানীয় আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সহ সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে কাউন্সিলর প্রার্থী জি এম আমিনুল ইসলাম জীবনের নিরাপত্তা ও সুষ্ঠ নির্বাচনের দাবী যানান।

তাই নির্বাচন চলাকলিন সময়ে সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার লক্ষে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ প্রশাসন ও গনমাধ্যম কর্মিদের প্রতি জোর দাবী জানায় কাউন্সিলর প্রাথী জি এম আমিনুল ইসলাম।

এই অভিযোগের ব্যাপারে অপর কাউন্সিলর প্রার্থী মোঃ রেজাউল করিম টিটু বলেন আমার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ মিথ্যা ভিত্তিহিন বলে দাবি করেন।

অভিযোগের ব্যাপারে সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন লিখিত অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান।