• ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ৬ই রমজান, ১৪৪২ হিজরি

কুয়াকাটায় সাংবাদিককে বেধরক পেটালেন ইউএনও!

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত এপ্রিল ৬, ২০২১, ১৩:১৫ অপরাহ্ণ
কুয়াকাটায় সাংবাদিককে বেধরক পেটালেন ইউএনও!

বিডি ক্রাইম ডেস্ক\ কলাপাড়ার কুয়াকাটায় সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিককে বেধরক পেটালেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মো. শহিদুল হক। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় কুয়াকাটা পৌর শহরের চৌরাস্তায় এ ঘটনা ঘটে। আহত সাংবাদিক দৈনিক আজকের তালাশ পত্রিকার কুয়াকাটা ও মহিপুর প্রতিনিধি ইলিয়াশ শেখ। জানা যায়, ‘কলাপাড়ায় মুজিববর্ষে গৃহহীনদের ঘর বিতরণে টাকা নেওয়ার অভিযোগ’ শিরোনামে দৈনিক আজকের তালাশসহ বেশ কয়েকটি শীর্ষ¯’ানীয় জাতীয় ও ¯’ানীয় প্রিন্ট পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। ওই সংবাদ প্রকাশের জেরেই এ মারধরের ঘটনা ঘটেছে বলে জানায় ¯’ানীয় সাংবাদিকরা। আহত সাংবাদিক ইলিয়াশ শেখ জানায়, ‘সোমবার সন্ধ্যায় লকডাউনের নিউজ কাভারারেজের জন্য স্বা¯’্যবিধি মেনে কুয়াকাটা চৌ-রাস্তা এলাকায় যাই আমি, তখন ইউএনও আবু হাসানাত মো. শহিদুল ইসলাম আমার পরিচয় জানতে চায়, আমি আমার পরিচয় দেওয়ার সাথে আমার আইডি কার্ড নিয়ে আমাকে ভ‚য়া সাংবাদিক বলে ট্যুরিস্ট পুলিশকে নির্দেশ দেয় আমাকে ধরতে পরে ৪ জন ট্যুরিষ্ট পুলিশ আমাকে ধরলে ইউএনও নিজে আমাকে পেটাতে থাকেন।’ এ ঘটনার প্রতিবাদ জানাতে প্রায় কয়েক শ’ ¯’ানীয় জনতা ক্ষিপ্ত হয়ে রাস্তায় নেমে যায়। তারা সাংবাদিক ইলিয়াশ শেখের উপর হামলার বিচারের দাবী জানিয়ে বিক্ষোভ করেন। পরে কুয়াকাটা পৌর মেয়র ও মহিপুর থানার ওসি ঘটনা¯’লে এসে পরি¯ি’তি নিয়ন্ত্রনে আনেন। ¯’ানীয়রা আহত অব¯’ায় সাংবাদিক ইলিয়াস শেখকে হাসপাতালে ভর্তি করেন, এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকলে কলেজ হাসপাতালে নেয়ার প্র¯‘তি চলছে বলে জানা যায়। মহিপুর থানা রিপোর্টার্স ইউনিটির সহ-সভাপতি শামীম ওসমান হীরা জানায়, ইউএনওর বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের জেরেই সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। একজন সাংবাদিককে এভাবে পেটানো সত্যিই দু:খজনক। আমরা এই ইউএনওর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানাই। এ ঘটনায় কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মো. শহিদুল হককে তার মুঠোফোনে একাধিকবার রিং দিলেও তিনি তা রিসিভ করেননি। মহিপুর থানা প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাবিবুল্লাহ খান রাব্বি জানায়, সাংবাদিক ইলিয়াস শেখকে ইউএনও কর্তৃক মারধরের ঘটনা শুনে আমার সংবাদকর্মীরা ঘটনা¯’লে যাই। পরে সাংবাদিককে মারধরের ঘটনা জানতে চাইলে ইউএনও আমাদের উপরও ক্ষিপ্ত হয়ে যায়।’ বাংলাদেশ সম্পাদক ফোরাম বরিশালের অর্থ সম্পাদক মারুফ হোসেন এ ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে বলেন, পেশাগত দায়িত্ব দায়িত্ব পালনকালে একজন সংবাদকর্মীকে ইউএনও যেভাবে মারধর করেছেন তা সত্যি নিন্দনীয়। এ ঘটনায় সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে বিচারের দাবী জানা”িছ। যদি দ্রæত এর বিচার না করা হয় তাহলে সাংবাদিকদের স্বার্থে আমরা কঠোর থেকে আন্দোলন করা হবে।’ এদিকে ইউএনও কর্তৃক সংবাদিককে নির্যাতনের ঘটনায় তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ সম্পাদক ফোরাম বরিশাল, বরিশাল নিউজ এডটিরস্ কাউন্সিল, বরিশাল তরুণ সাংবাদিক ফোরামসহ কুয়াকাটার সর্ব¯’রের সাংবাদিক সমাজ।