• ২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১২ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

কাঠালিয়ার হলতার ভাঙনে দোকানসহ ৮ স্থাপনা বিলীন

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত জুন ৮, ২০২১, ২০:১৭ অপরাহ্ণ
কাঠালিয়ার হলতার ভাঙনে দোকানসহ ৮ স্থাপনা বিলীন

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ হঠাৎ হলতার ভাঙনে ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলার ঐতিহ্যবাহী ঘোষের হাটের দোকানসহ আটটি স্থাপনা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।অতি বর্ষণ ও হলতা নদীর প্রচণ্ড স্রোতে মঙ্গলবার (৮ জুন) ঘোষের হাটের কিছু অংশ দেবে যায়। এতে মুদি দোকান, সেলুন, হার্ডওয়ার, চায়ের দোকান ও টলসেটসহ আটটি স্থাপনা পানিতে তলিয়ে যায়। ব্যবসায়ীদের প্রায় অর্ধকোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

 

ভাঙনের মুখে ঘোষের হাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার সকাল থেকেই হলতা নদীর তীরে ঘোষের হাটে ভাঙন শুরু হয়। ক্রমান্বয়ে ভাঙন বাড়তেই থাকে। এতে হাটের চায়ের দোকান, হার্ডওয়্যারের দোকান, মুদি দোকানসহ আটটি স্থাপনা নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। এতে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা।

 

 

হলতা নদীর ভাঙনরোধ ও ক্ষতি পূরণের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন তারা।খবর শুনে কাঠালিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুফল চন্দ্র গোলদার ভাঙনকুল পরিদর্শন করেছেন। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে তিনি জানান, ভাঙনের বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

 

 

তারাই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।বিশ্ব মহাসাগর দিবসে কুয়াকাটায় ‘সি বিচ ক্লিনিং’ কর্মসূচি পালিত বিশ্ব মহাসাগর দিবসে পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় দসি বিচ ক্লিনিং’ কর্মসূচি পালিত হয়েছে।মঙ্গলবার (৮ জুন) সকালে সৈকতের জিরো পয়েন্ট থেকে উভয় পাশে দুই কিলোমিটার এলাকা পরিষ্কার করা হয়।

 

 

এ সময় ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব কুয়াকাটার (টোয়াক) প্রেসিডেন্ট রুমান ইমতিয়াজ তুষার, কুয়াকাটা প্রেস ক্লাবের সভাপতি নাসির উদ্দিন বিপ্লব, ট্যুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোনের পরিদর্শক মিজানুর রহমান, ইকোফিশ-২ পটুয়াখালী জেলার সহকারী গবেষক সাগরিকা স্মৃতি ও মো. জামাল উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।টোয়াক’র প্রেসিডেন্ট রুমান ইমতিয়াজ তুষার বলেন, আমাদের সবার উচিৎ ময়লা আসার যে উৎপত্তিস্থলগুলো রয়েছে সেগুলোকে দ্রুত স্থানান্তর করা।

 

 

ট্যুর অপারেটর কেএম বাচ্চু বলেন, কুয়াকাটা সী বিচ পরিষ্কার রাখা আমাদের সকলের দায়িত্ব। বিচ ট্যুরিস্টদের প্রধান খোরাক, বিচ পরিষ্কার রাখতে আমরা তাদের সঙ্গে কাজ করছি আমরা।ইকোফিশ-২ প্রকল্পের পটুয়াখালী জেলার সহকারী গবেষক সাগরিকা স্মৃতি বলেন, আমরা বিশ্ব মহাসাগর দিবসে সৈকত পরিষ্কারের উদ্যোগ নিয়েছি। আমরা যাতে সবধরনের প্লাস্টিকের বর্জ্যগুলো সমুদ্রে না ফেলি সেদিকে সবার নজর দিতে হবে।