• ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৬শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

কলাপাড়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থীকে বাসায় আটকে যৌণ নিপীড়ণ, গ্রেফতার দুই ।। ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত নভেম্বর ২৫, ২০২১, ১৭:৫৫ অপরাহ্ণ
কলাপাড়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থীকে বাসায় আটকে যৌণ নিপীড়ণ, গ্রেফতার দুই ।। ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা

তানজিল জামান জয়, কলাপাড়া: পরীক্ষা শেষে বাসায় ফেরার পথে এক এসএসসি পরীক্ষার্থীকে বাসায় আটকে যৌণ নিপীড়ণের অভিযোগে দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পটুয়াখালীর কলাপাড়ার লালুয়া ইউনিয়নের চর চান্দুপাড়া গ্রাম থেকে বুধবার রাত ১১টার দিকে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে এবং নির্যাতনের শিকার ছাত্রীকে উদ্ধার করে কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করে।

গ্রেফতারকৃতরা হলো মোটরসাইকেল চালক মূল অভিযুক্ত নুর বাহাদুর চৌধুরী (২৫) ও কলেজ ছাত্র সুজন হাওলাদার (২২)। এ ঘটনায় ছয়জনের নামে বৃহস্পতিবার সকালে ওই ছাত্রী বাদি হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন।

কলাপাড়া থানা পুলিশ জানান, লালুয়ার জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভোকেসনাল বিভাগ থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয় বালিয়াতলী ইউনিয়নের চরনজির গ্রামের ওই ছাত্রী। বুধবার দুপুরে কলাপাড়া পৌর শহরের খেপুপাড়া মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে পরীক্ষা শেষে মোটরসাইকেল চালক নুর বাহাদুরের মোটরসাইকেলে করে নিজ বাসায় ফিরছিলেন।

কিন্তু তাকে বাসায় না নিয়ে নুর বাহাদুর তার চর চান্দুপাড়ার নিজ বাসায় নিয়ে যায়। এসময় তার বাসায় কেউ না থাকায় ওই ছাত্রীকে মারধর করে আহত করে এবং তার পড়নের কাপড় টেনেহেঁচড়ে খুলে তাকে যৌন নিপীড়ণ করে।

এ সময় স্থানীয়রা ওই ছাত্রীর কান্নাকাটি শুনে ওই বাসায় গিয়ে পুলিশকে খবর দেয়। উদ্ধার করে ওই ছাত্রীকে। খবর পেয়ে রাত ১১টার দিকে পুলিশ নুরবাহাদুর ও সুজনকে গ্রেফতার করে।
স্কুল ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগ, তাকে ভুল বুঝিয়ে বাসায় নিয়ে নুর বাহাদুর তার সহযোগীদের নিয়ে জোড়পূর্বক ধর্ষন চেস্টা চালায়। এরআগেও তাকে নানা ভাবে উত্তক্ত করতো।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জসীম জানান, তারা ঘটনার খবর পেয়ে দুই ঘন্টার মধ্যেই প্রধান দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেন। ভিকটিম ছাত্রী এখনো কলাপাড়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে গ্রেফতার নুর বাহাদুর ও সুজনকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলার অপর আসামী নিপুন শরীফ, আব্দুল হাই সন্যামত, জুলহাস ও শামীম হাওলাদারকে গ্রেফতারের চেস্টা চলছে।