• ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ১০ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

অবশেষে বরিশাল-৫ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেন সাদিক আব্দুল্লাহ

বিডিক্রাইম
প্রকাশিত নভেম্বর ২৮, ২০২৩, ১৮:১৪ অপরাহ্ণ
অবশেষে বরিশাল-৫ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেন সাদিক আব্দুল্লাহ

বিডি ক্রাইম ডেস্ক, বরিশাল ॥ উৎসব মুখর পরিবেশে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বরিশালের ৬টি আসনে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমা দিচ্ছেন বিভিন্ন দলের প্রার্থীরা। বরিশালের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন সংগ্রহ ও জমা দেন প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা।

সোমবার সকাল থেকে মঙ্গলবার দুপুর ১টা পর্যন্ত বরিশালের ৬টি আসনে মোট ২২ জন প্রার্থী মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন। এর মধ্য একজন প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছেন।

মঙ্গলবার বেলা ১টার দিকে বরিশালের রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে বরিশাল-৫ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বঞ্চিত বরিশাল সিটি কপোরেশনের সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর পক্ষে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেন তার অনুসারী নেতারা।

তার পক্ষে দুপুর ১টার দিকে মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর গাজী নঈমুল হোসেন লিটু মনোনয়ন সংগ্রহ করেন। এসময় মহানগর আওয়ামী লীগের অনান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সোমবার বরিশাল-৫ আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য ও পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুকের পক্ষে মনোনয়ন সংগ্রহ করেন তার অনুসারীরা। এরপর থেকেই স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার গুঞ্জন ছিল সাদিক আবদুল্লাহকে নিয়ে।

এর আগে সকাল ১১টায় বরিশালের রিটার্নিং কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম এর কাছে মনোনয়ন পত্র জমা দেন ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী বরিশাল-৩ আসনের শেখ টিপু সুলতান। এসময় তার সাথে জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি নজরুল হক নিলুসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর পর বেলা সাড়ে ১১টায় বরিশাল-৪ (হিজলা-মেহেন্দীগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. শাম্মী আহমেদের পক্ষে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছ থেকে মনোনয়ন সংগ্রহ করেন আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক উপ কমটির সদস্য সৈয়দ মনির।

দুপুর দেড়টায় বরিশালের রিটার্নিং কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম জানান, সোমবার ও মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত বিভিন্ন দলের ২২ জন মনোনয়ন সংগ্রহ করেছে। এর মধ্যে একজন মনোনয়ন জমা দিয়েছে।

তিনি আরো জানান, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে তাদের নির্দেশনা দিয়েছে আচরণ বিধি প্রতিপালনের জন্য এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের বিষয়ে। তারা ১৪ জন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সিটি কপোরেশন ও উপজেলা ভিত্তিক নিয়োগ দিয়েছেন। এর বাইরে সমগ্র জেলার জন্য দুই জনকে অতিরিক্ত দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে।